১৪ই নভেম্বর, ২০১৮ ইং, ৩০শে কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ৪ঠা রবিউল-আউয়াল, ১৪৪০ হিজরী

শিরোনামঃ-

আইসিসির পরীক্ষায় পাস তাসকিন-সানি

সেপ্টেম্বর ২৪, ২০১৬

Share Button

32833_a স্পোর্টস ডেস্ক –শঙ্কার কালো মেঘ কেটে গেলো। বোলিং অ্যাকশনের বৈধতা পেলেন তাসকিন আহমেদ ও আরাফাত সানি। গতকাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি) এক বিবৃতির মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করে। পরীক্ষা শেষে বাংলাদেশের এই দুই বোলারের বোলিং অ্যাকশনের বৈধতা দিলো তারা। সামনে থেকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে বল করতে পারবেন তারা দু’জনই। এতে আগামীকাল থেকে শুরু হতে যাওয়া আফগানিস্তানের বিপক্ষে তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথমটিতেই দেখা যেতে পারে পেসার
তাসকিন আহমেদকে। সিরিজের প্রথম দুই ওয়ানডের জন্য সোমবার ১৩ সদস্যের দল ঘোষণা করে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। বোলিং অ্যাকশনের বৈধতা পাওয়া সাপেক্ষে ১৪তম খেলোয়াড় হিসেবে তাসকিন দলে থাকবেন বলে তখন জানান তারা। কাঙ্ক্ষিত সেই বৈধতা পেয়ে জাতীয় দলে ফিরলেন তাসকিন। তবে এই সিরিজের জন্য দলে রাখা হয়নি স্পিনার আরাফাত সানিকে। আগামীকাল থেকে শুরু হতে যাওয়া ন্যাশনাল ক্রিকেট লীগে (এনসিএল) খেলবেন তিনি।
এর আগে বাংলাদেশের দুই বোলার আবদুর রাজ্জাক ও সোহাগ গাজী অবৈধ বোলিং অ্যাকশনের দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে নিষিদ্ধ হন। কিন্তু তারা আইসিসি’র পরীক্ষা উৎরে ফের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরেন। ফেরার পর আবদুর রাজ্জাকের নৈপুণ্য ছিল আগের মতোই ধারালো। কিন্তু সোহাগ গাজী ছিলেন কিছুটা মলিন। তবে তাসকিন ও সানি আগের মতোই নৈপুণ্য ধরে রাখবেন বলে আশা সমর্থকদের।
তাসকিন-সানির বোলিং অ্যাকশন নিয়ে প্রশ্ন ওঠে গত মার্চে। ভারতের অনুষ্ঠিত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বাছাইপর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে মাঠে নামে বাংলাদেশ। ধর্মশালায় ৯ মার্চের ওই ম্যাচে দুই বোলার তাসকিন ও সানির অ্যাকশন নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেন আম্পয়াররা। বিশ্বকাপ চলাকালে দলের অন্যতম সেরা দুই বোলারের অ্যাকশন নিয়ে আম্পায়াররা প্রশ্ন তোলায় বাংলাদেশের ক্রিকেট সমর্থকরা ছিলেন ক্ষুব্ধ। তবে নিয়ম মেনেই দুই বোলারকে নামতে হয় আইসিসি’র পরীক্ষায়। ১২ই মার্চ সানি ও ১৫ই মার্চ তাসকিন আইসিসি’র চেন্নাইয়ে শ্রী রামচন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবরেটরিতে অ্যাকশন পরীক্ষা দেন। বোলিং অ্যাকশন বৈধ প্রমাণ করে বিশ্বকাপের মূলপর্বে তাদের ফেরার ব্যাপারে আশাবাদী ছিলেন বোর্ডের কর্মকর্তা ও বাংলাদেশের ক্রিকেটপ্রেমীরা। ১৯ মার্চ দুই খেলোয়াড়ের পরীক্ষার ফল জানায় আইসিসি। খবরটি বজ্রপাতের মতো হয়ে আসে বাংলাদেশের ক্রিকেটভক্তদের কাছে। তাদের বোলিং অ্যাকশন বৈধ নয় বলে জানিয়ে দেয় আইসিসি। এরপরও হাল ছাড়েনি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এর ঠিক একদিন বাদে ২১শে মার্চ তাসকিনের নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে আপিল করে বিসিবি। ২৩শে মার্চ বিশ্বকাপে বাংলাদেশের খেলা ছিল ভারতের বিপক্ষে। ওই ম্যাচের আগে তাসকিনের নিষেধাজ্ঞা উঠে যাবে বলে আশা করে ছিলেন বাংলাদেশের ক্রিকেটভক্তরা। কিন্তু ভারত ম্যাচের দিন সকালে একরাশ হতাশাকর খবর পায় বাংলাদেশ। আইসিসি’র নিষেধাজ্ঞা বহাল রাখে জুডিশিয়াল কমিশন। সেখানেই মাটি হয় তাসকিনের বিশ্বকাপ খেলার আশা। দেশে ফিরে আসেন তাসকিন-সানি। অ্যাকশন শুধরানোর জন্য নিবিড়ভাবে কাজ শুরু করেন তারা। ঢাকা প্রিমিয়ার লীগে খেলেন দু’জনই। কঠোর পরিশ্রমের মাধ্যমে নিজেদের অ্যাকশন শুধরানোর চেষ্টা করেন তারা। অবশ্য তাসকিনের অ্যাকশন নিয়ে কখনোই সন্দেহ ছিল না বাংলাদেশের বিশেষজ্ঞাদের। তবে সানির অ্যাকশন নিয়ে কিছুটা সন্দেহ ছিল। অ্যাকশন শুধরানোর পর বিসিবি নিজেদের উদ্যোগেই ‘টুডি’ প্রযুক্তির মাধ্যমে তাদে বোলিং অ্যাকশন পরীক্ষা করে। এই পরীক্ষায় সন্তুষ্ট হওয়ার পর তাদেরকে ফের পাঠানো হয় আইসিসি বোলিং অ্যাকশন পরীক্ষাগারে। তবে এবার ভারত নয়, পাঠানো হয় অস্ট্রেলিয়ায়। ৮ই সেপ্টেম্বর ব্রিজবেনের ন্যাশনাল ক্রিকেট সেন্টারের ল্যাবে পরীক্ষা দেন তারা। পরীক্ষার ফল দেয়ার কথা ছিল দুই থেকে তিন সপ্তাহের মধ্যে। আইসিসি তাসকিন-সানির পরীক্ষার ফল দিলো ১৫ দিনের মাথায়। তারা জানালো, বাংলাদেশের এই দুই বোলারের কনুই বল করার সময় নির্ধারিত সীমা ১৫ ডিগ্রির বেশি বাঁকায় না। অভিযোগ থেকে ‘মুক্তি’ পেয়ে এখন তারা স্বাধীন।

সর্বশেষ খবর

আজকের সর্বাধিক পঠিত

  • No results available

সর্বাধিক পঠিত

  • No results available

দিনপঞ্জি

নভেম্বর ২০১৮
সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
« আগষ্ট    
 
১০১১
১২১৩১৪১৫১৬১৭১৮
১৯২০২১২২২৩২৪২৫
২৬২৭২৮২৯৩০  

এ বিভাগের আরও খবর

প্রধান সম্পাদক- খোরশেদ আলম চৌধুরী

সম্পাদক ও প্রকাশক-শফিকুর রহমান চৌধুরী (এম এ)

বার্তা সম্পাদক-মাঈন উদ্দিন দুলাল

ঢাকা অফিস : রোড # ১৩, নিকুঞ্জ - ২, খিলক্ষেত, ঢাকা-১২২৯,

সম্পাদকীয় অফিস :জোড্ডা বাজার,নাঙ্গলকোট, কুমিল্লা-৩৫৮২

বার্তা বিভাগ-০০২১৮৯২৮২৭৬৯০১,ইমো নাম্বার

Email- nangalkottimes24@gmail.com

প্রধান সম্পাদক কর্তৃক  প্রচারিত ও প্রকাশিত

সাইট উন্নয়নেঃ ICTSYLHET
error: কপি করা থেকে বিরত থাকুন।